ডোমেইন (Domain) হোস্টিং (Hosting) কী?

আসসালামুয়ালাইকুম। সবাইকে BloggersBD24 ব্লগ সাইটে স্বাগতম। আমরা যারা ব্লগিং সেক্টর বা ব্লগিং এর সাথে যুক্ত আছি তারা সবাই কম বেশি ডোমেইন হোস্টিং সম্পর্কে জানি। এই পোস্টের মাধ্যমে আমরা ডোমেইন ও হোস্টিং সম্পর্কে বিস্তারিত জানব।

ডোমেইন হোস্টিং কী?

ডোমেইন (Domain) কি?

তাহলে প্রথমেই আসি ডোমেইন কি? ডোমেইন ইংরেজি শব্দ এর বাংলা হচ্ছে নাম। কোনো ওয়েবসাইট বা ওয়েবপেজ এর নাম হচ্ছে ডোমেইন। যেমনঃ https://bloggersbd24.com এখানে bloggersbd24.com হচ্ছে ডোমেইন নাম। প্রতিটি ওয়েবসাইট এর ইউনিক একটি ডোমেইন নাম থাকে যেমনঃ facebook.com এই নামে দ্বিতীয় কোন ডোমেইন পাওয়া যাবে না। প্রত্যেকটা ডোমেইনের জন্য আলাদা আলাদা আইপি অ্যাড্রেস রয়েছে। ডোমেইন নামের পরিবর্তে আইপি অ্যাড্রেসও ব্যবহার করা যায়। একই ডোমেইন নাম যাতে অন্য কেউ না পায় সেই জন্য ব্যবহার করা হয় DNS সিস্টেম বা Domain Naming System.

আমরা জানি যে facebook.com একটি ডোমেইন নাম তাহলে এখানে .com জিনিসটা কি? এটা হলো ডোমেইন এক্সটেন্সন (Domain Extension). এই এক্সটেন্সন আবার দুই ধরনের হয়ে থাকে।
১। টপ লেভেল ডোমেইন।
২। সাব ডোমেইন।

টপ লেভেল ডোমেইন (Top Level Domain)

ডোমেইন নামের পরের অংশটি হলো টপ লেভেল ডোমেইন। টপ লেভেল ডোমেইন আবার দুই ধরনের হয়ে থাকে।
১। জেনেরিক (Generic)
২। কান্ট্রি (Country)

জেনেরিক ডোমেইন (Generic Domain)

জেনেরিক ডোমেইন বলতে সাধারণ সব ডোমেইনকে বুঝানো হয়। কয়েকটি সাধারণ ডোমেইনের উদাহরণ হলোঃ
.com – বাণিজ্যিক বা সাধারণ প্রতিষ্ঠানের জন্য ব্যবহার করা হয়।
.gov – গভর্নমেন্ট বা রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্টানের জন্য ব্যবহার করা হয়।
.edu – এডুকেশনাল বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য ব্যবহার করা হয়।
.net – নেটওয়ার্ক সার্ভিস বা সার্ভিস প্রভাইডার প্রতিষ্ঠানের জন্য ব্যবহার করা হয়।
.org – সংস্থার জন্য ব্যবহার করা হয়।
.int – আন্তর্জাতিক সংস্থার জন্য ব্যবহার করা হয়।

এছাড়াও বর্তমানে আরোও অনেক জেনেরিক টপ লেভেল ডোমেইন রয়েছে। যেমনঃ .xyz, .pw, .pro, .top ইত্যাদি।

কান্ট্রি ডোমেইন (Country Domain)

কোনো দেশের নামের সংক্ষিপ্তরূপ ব্যবহার করে সেই দেশের ওয়েবসাইট বুঝাতে কান্ট্রি ডোমেইন ব্যবহার করা হয়। যেমনঃ
.bd – বাংলাদেশ
.in – ইন্ডিয়া/ভারত
.ar – আর্জেন্টিনা
.jp – জাপান
.us – যুক্তরাষ্ট্র
.uk – যুক্তরাজ্য/ইংল্যান্ড
.sa – সৌদি আরব
.cn – চীন

এছাড়াও আরোও বিভিন্ন দেশের জন্য বিভিন্ন বিভিন্ন কান্ট্রি ডোমেইন ব্যবহার করা হয়।

সাব ডোমেইন ( Sub Domain)

সাব ডোমেইন হলো কোন একটি ডোমেইনের অধীনে অন্য আরেকটি ডোমেইন। যেমন facebook.com এর অধীনে support.facebook.com একটি সাব ডোমেইন।

হোস্টিং (Hosting) কী?

হোস্টিং হলো জায়গা বা মেমোরি যেখানে ওয়েবসাইট রাখা হয়। হোস্টিং এ ওয়েবসাইট এর সব তথ্য ও ফাইল স্টোর করে রাখা গয়। হোস্টিং এর জায়গা, লোডিং ক্ষমতা, স্পীড এর ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন ধরনের হোস্টিং হয়ে থাকে।

ডোমেইন হোস্টিং প্রোভাইডার (Domain Hosting Provider)

যাদের কাছ থেকে বা যেখান থেকে ডোমেইন হোস্টিং কিনতে হয় তাদের বলা হয় ডোমেইন হোস্টিং প্রোভাইডার। কিছু সুনামধন্য হোস্টিং প্রোভাইডার হলোঃ

  1. NameCheap
  2. Godaddy
  3. BlueHost
  4. HostGattor
  5. Hostinger ইত্যাদি।

সর্বশেষ

নিজের ওয়েবসাইটকে সুরক্ষিত রাখতে ভালো ডোমেইন হোস্টিং এর বিকল্প নেই। তাই সবসময় ওয়েবসাইট এর সুরক্ষার কথা চিন্তা করে ডোমেইন হোস্টিং কিনবেন।

প্রতিদিন নতুন নতুন তথ্য পেতে ভিজিট করুন BloggersBD24 ওয়েবসাইট। আমাদের ওয়েবসাইট সম্পর্কে আপনার গুরত্বপূর্ণ তথ্য ও মতামত জানাতে ভুলবেন না।

3 Comments

  1. অনেক সুন্দর হয়েছে আর্টিকেলটি।এই পোষ্টের মাধ্যমে খানিকটা সহজ হলো ডোমেইন হোস্টিং বিষয় নিয়ে।ধন্যবাদ আপনাকে এতো সুন্দর গুরুত্বপূর্ণ একটি পোষ্ট শেয়ার করার জন্য। আশা করি সামনে এইরকম আরোও গুরুত্বপূর্ণ পোষ্ট পাবো।

  2. মা-শা-আল্লাহ, ডোমেইন ও হোস্টিং কি অনেক সুন্দর করে বুঝিয়েছেন আর্টিকেলে। তবে বানান এর দিকে আরেকটু নজর দিবেন।

  3. অসাধারণ লিখেছেন। আশা ভবিষ্যতেও এরকম ইনফরমেটিভ কন্টেন্ট পাবলিশ করে যাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *